দেশ

করোনা পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক বৃদ্ধির উপরেই এখন সবচেয়ে বেশি জোর দেওয়া হবে: আরবিআইয়ের গভর্নর

Story Highlights
  • গত ১০০ বছরের মধ্যে স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ধাক্কা

করোনা পরিস্থিতিতে এখন দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করাই মূল লক্ষ্য। শনিবার সাংবাদিক বৈঠকে এমনই বার্তা দিলেন আরবিআইয়ের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। দেশের সপ্তম এসবিআই ব্যাঙ্কিং অ্যান্ড ইকোনমিকস কনক্লেভে ভিডিও বার্তায় এমনই বার্তা দিয়েছেন তিনি। তিনি বলেছেন গত ১০০ বছরেও ভারত সবচেয়ে বড় আর্থিক ক্ষতি হয়েছে করোনা সংকটের কারণে।এই সময়ে বহু মানুষ চাকরি খুইয়েছেন। বহু অর্থনীতিবিদই কোভিড- ১৯ পরিস্থিতিতে চলতি বছরে ভয়ঙ্কর মন্দার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

অর্থনৈতিক বৃদ্ধির উপরেই এখন সবচেয়ে বেশি জোর দেওয়া হবে: আরবিআইয়ের গভর্নর

দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক বৃদ্ধি করাই এখন সবচেয়ে জরুরি, স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান রজনীশ কুমারের সঙ্গে এক আলাপচারিতায় একথাই বললেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের (RBI) গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। সপ্তম এসবিআই ব্যাঙ্কিং অ্যান্ড ইকোনমিক্স কনক্লেভের মঞ্চে ভিডিও কনফারেন্সের মারফৎ নিজের মত ব্যক্ত করেন আরবিআইয়ের গভর্নর (Shaktikanta Das)। দেশে করোনা ভাইরাসের (Coronavirus in India) বাড়বাড়ন্ত লক্ষ্য করে গত মার্চ মাস থেকেই দেশব্যাপী অত্যন্ত কড়া লকডাউন জারি করে কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে বিরাট আর্থিক ক্ষতিম মুখে পড়ে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি। এই সময়ে বহু মানুষ চাকরি খুইয়েছেন। বহু অর্থনীতিবিদই কোভিড- ১৯ পরিস্থিতিতে চলতি বছরে ভয়ঙ্কর মন্দার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

এদিকে দেশে করোনা সংক্রমণ ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে। পরিসংখ্যানের দিকে তাকালে শিউরে উঠতে হয়। কারণ  সব মিলিয়ে দেশে এই মারণ রোগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮,২০,৯১৬ জনে। একদিনের মধ্যে সারা দেশে ৫১৯ জনের প্রাণ কেড়েছে কোভিড- ১৯। ফলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃতের সংখ্যা গিয়ে পৌঁছেছে ২২,১২৩ জনে।

দেখে নিন আরবিআইয়ের গভর্নরের মূল বক্তব্য:

  • গত ১০০ বছরের মধ্যে স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিপর্যয় ডেকে এনেছে কোভিড- ১৯
  • দেশের আর্থিক পরিস্থিতি মোকাবিলায় আরবিআই বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক পদক্ষেপ করেছে
  • সেই পদক্ষেপগুলো ইতিমধ্যেই কার্যকরী হয়েছে
  • যে যে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সেগুলো হল:
    • আর্থিক নীতিমালা ব্যবস্থা: করোনা পরিস্থিতির বাড়বাড়ন্তের আগেই “সুবিধাজনক” অবস্থানে আরবিআই
    • ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে, আরবিআই ২৫০ বেসিস পয়েন্ট (২.৫ শতাংশ পয়েন্ট) কমিয়েছে
    • বাজারে টাকার জোগান বাড়াতে প্রচলিত ও ব্যতিক্রমী, দুই ধরণের পদক্ষেপই করেছে আরবিআই
    • আরবিআই ফেব্রুয়ারি থেকে ৯.৫৭ লক্ষ কোটি তরল টাকার জোগানের ঘোষণা করেছে, যা জিডিপির ৪.৭% এর সমান
    • আর্থিক স্থিতিশীলতার দিকেও সমান অগ্রাধিকার দিতে হবে।
    • এনবিএফসি এবং মিউচুয়াল ফান্ডগুলির উপর নজর রাখতে হবে।
    •   অর্থনৈতিক বৃদ্ধি করাকেই এখন অগ্রাধিকার দিচ্ছে আরবিআই।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close