রাজনীতি

করোনা পরিস্থিতিতে ভার্চুয়াল প্রচারেই জোর তৃণমূল, বিজেপির

২০২১ সালেই রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। কিন্তু সাম্প্রতিক করোনা পরিস্থিতি যেন কিছুটা হলেও নির্বাচনী বাজারকে দমিয়ে রেখেছে। তবু ভার্চুয়াল জগৎকে হাতিয়ার করেই এবার মানুষের মধ্যে প্রচারে নামতে চাইছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস থেকে শুরু করে বিরোধী দল বিজেপি সহ অন্যরা। তবে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে মূল লড়াইটা হবে ঘাসফুলের দলের সঙ্গে গেরুয়া শিবিরের, এমনটাই মনে করছেন অনেকে। বর্তমানে যা পরিস্থিতি, তাতে বিভিন্ন জায়গায় মিছিল বা রাজনৈতিক সভা করার একেবারেই উপায় নেই। তাই আপাতত রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে প্রচারে সোশ্যাল মিডিয়াকেই হাতিয়ার করছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। রাজ্যের কোভিড- ১৯ পরিস্থিতি, পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশা এবং ঘূর্ণিঝড় আমফানের পর পরিস্থিতি মোকাবিলা সব বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে লাগাতার একে অপরকে দোষারোপ করে চলেছে বিজেপি এবং তৃণমূল কংগ্রেস।

অমিত শাহ আগামী ৯ জুন ভার্চুয়াল র‍্যালির মাধ্যমে বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনে গেরুয়া দলের প্রচারের সূচনা করবেন। এই প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি ও সাংসদ দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, তৃণমূল নেতৃত্বাধীন প্রশাসনের খারাপ দিকগুলো নেটিজেনদের কাছে পৌঁছানোর জন্য এই ধরণের পরিকল্পনা তৈরি করা আবশ্যিক হয়ে পড়েছিল।

গত সপ্তাহেই রাজ্য বিজেপি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে “৯ দফা অভিযোগপত্র” প্রকাশ করেছে এবং সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় “আর নয় মমতা” নামেও প্রচার শুরু করেছে গেরুয়া দল।

রাজ্য বিজেপি সূত্রে জানা গেছে, রাজ্যের প্রতিটি কোণায় থাকা মানুষের কাছে পৌঁছনোর জন্যে এক হাজারেরও বেশি ভার্চুয়াল র‍্যালি করার পরিকল্পনা করেছে দল।রাজ্যের মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, বিগত ৯ বছরে আমাদের সরকার যেসব দুর্দান্ত কাজ করেছে সেগুলোকেই মানুষের সামনে তুলে ধরতে হবে, বিজেপি’র অপপ্রচার, এবং ভুয়ো খবর ছড়ানোর প্রবণতাকে রুখে দিতে হবে।

“মমতাদি আমাদের ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের জন্য আর একটুও দেরি না করে প্রস্তুতি শুরু করতে বলে দিয়েছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close